আজ- রবিবার, ২৪শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
Email *

শিরোনাম

  মনোয়ারাঃ সক্ষম সন্তানদের মরতে বসা মা       নদী-খাল উদ্ধারে সফল, সফলতার পথে এবং সম্ভাব্য অভিযান       মাছের পেটের রড থেকে গরাদঘরে       পাবনায় নৌ-র‌্যালিঃ নদী উদ্ধারে নতুন উদ্ভাবন       বন্যার্তদের জন্য দান নয় ঋণ শোধের আয়োজন       আক্রান্ত সিটিজেন জার্নালিজম       দক্ষিণাঞ্চলে দুই সপ্তাহব্যাপী নিম্নচাপঃ উদ্ভাবন ও সিটিজেন জার্নালিজম বিব্রত       আইনজীবীর হৃৎকম্পে কাঁপছে দেশ       পাবলিক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রতিচ্ছবি       জনশক্তিতে উদ্ভাবন       ফেইসবুক, বাংলাদেশ সরকার এবং রাজার ঘণ্টা       অধ্যক্ষ অনিমেষ ও সোশাল মিডিয়া       জনবান্ধব স্বাস্থ্যসেবায় সোশ্যাল মিডিয়া ও প্রথা ভাঙ্গার গল্প       শিয়ালের কামড় থেকে সোশাল মিডিয়ার কামড়       সোশাল মিডিয়া ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ডের ১ বছর ১ মাস       দেশের প্রথম ‘স্টুডেন্ট কমিউনিটি পুলিশিং’ সম্মেলন       আদালতের ভ্রমণ বর্জন       আবহাওয়া অধিদফতরের এ্যাপে বজ্রপাতের পূর্বাভাস ও করণীয়       WSIS Prizes 2017 এ ভোট দেয়ার ৭ টি দাপ্তরিক নজির       RMP’র মাদক ও জঙ্গী বিরোধী উদ্ভাবন ও অন্যান্য    

সোশাল মিডিয়া ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ডের ১ বছর ১ মাস

‘পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন বাংলাদেশ’ একটি শক্তিশালী ফেসবুক গ্রুপ। কেবিনেট সেক্রেটারী থেকে নবীনতম সরকারী কর্মকর্তা পর্যন্ত ১৩ হাজারেরও বেশী সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারী এই গ্রুপে যুক্ত। গত ১ বছর ধরে এই গ্রুপে করা পোস্ট এর ভিত্তিতে নির্মোহ ভাবে বিচার করে সোশ্যাল মিডিয়া ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হচ্ছে। এই এ্যাওয়ার্ড প্রবর্তনের পর থেকে গ্রুপে পোস্টের মান ও পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে এটি স্পষ্ট। অর্থাৎ আইডিয়াটি সফল। এ্যাক্টিভ মেম্বারও বেড়েছে তবে এ্যাক্টিভ মেম্বারদের এ্যাক্টিভিটিজ বেড়েছে অনেকগুণ।
এ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি মিলিয়ে প্ররস্কারপ্রাপ্তের সংখ্যা ৪৪। জেলা প্রশাসনে খুলনা, বরিশাল, বরগুনা, টাংগাইল, যশোহর, গাইবান্ধা, নীলফামারি, নারায়ণগঞ্জ, ঝালকাঠি, জামালপুর, পাবনা, চাঁদপুর, বাগেরহাট এবং ড. গাজী সাইফুজজামান (জেলা প্রশাসক, বরিশাল) ও সৈয়দ বেলাল হোসেন (জেলা প্রশাসক, কুষ্টিয়া) – মোট ১৫টি পুরস্কার পেয়েছেন। মোঃ লিয়াকত আলী শেখ (এসি ল্যান্ড, পুঠিয়া), নাহিদা বারিক (এসি ল্যান্ড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ), এবং উপজেলা ভূমি অফিস, ভেড়ামারা, কুষ্টিয়া (শিহাব রায়হান) এর মাধ্যমে মোট ৩টি পুরস্কার গেছে ভূমিতে।
এছাড়াও প্রতিষ্ঠান বা টিম হিসাবে
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়,
বিভাগীয় কমিশনার, খুলনা,
সমাজসেবা অধিদপ্তর,
সমবায় অধিদপ্তর,
ট্রাফিক ডিভিশন, গাজীপুর
জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর
উপজেলা প্রশাসন, ত্রিশাল
উপজেলা প্রশাসন, কালিহাতি
ম্যাজিস্ট্রেটস অল এয়ারপোর্টস অফ বাংলাদেশ
এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান
বাংলাদেশ রোড প্রান্সপোর্ট অথরিটি
বাগেরহাট পৌরসভা
সরকারী সিটি কলেজ, চট্টগ্রাম
সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, বরগুনা
সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম টাঙ্গাইল এবং
সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, বরিশাল পুরস্কৃত হয়েছেন।
আর ব্যক্তি পর্যায়ে আরও ১০ জন পুরস্কৃত হয়েছেন।
(১) ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী (সিনিয়র সচিব, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়),
(২) মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ (রেক্টর, বিসিএস এ্যাডমিন একাডেমী),
(৩) মোঃ আতিকুর রহমান (সহকারী পরিচালক, জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি অফিস, বগুড়া),
(৪) ওয়ারেস আনসারী লিমন (এসিসট্যান্ট কমিশনার, কুড়িগ্রাম)
(৫) মোঃ খায়রুল ইসলাম (নাগরিক, কুষ্টিয়া),
(৬) মোঃ রাকিবুল আলম মামুন (শিক্ষক, কুষ্টিয়া),
(৭) মোহাম্মদ আব্দুর রউফ (ডাটা এন্ট্রি অপারেটর, উপজেলা রিসোর্স সেন্টার, বাহুবল, হবিগঞ্জ), এবং
(৮) মোঃ নূর আলম (উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা, পাটগ্রাম, লালমনিরহাট)।
(৯) অজয় কুমার সাহা (ডেপুটি রেজিষ্ট্রার, বিভাগীয় সমবায় অফিস, রংপুর)
(১০) ড.মাহফুজুর রহমান (রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রাজশাহী)
প্রথম মাস এপ্রিলে ৮টি পুরস্কারই দেয়া হয়েছে ব্যক্তিকে। মে মাসে ১ জন ব্যক্তি ও ৪টি প্রতিষ্ঠান পুরস্কৃত হয়। জুন মাসেও তাই। জুলাই মাসে ১ জন ব্যক্তি ও ১টি প্রতিষ্ঠান। আগস্ট মাসে ১ জন ব্যক্তি ও ২টি প্রতিষ্ঠান। সেপ্টেম্বরে ৩টি প্রতিষ্ঠান, তিন জেলা প্রশাসন পুরস্কৃত হয়। অক্টোবরে ১টি প্রতিষ্ঠান ও ১টি গ্রুপ (সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, বরিশাল) পুরস্কৃত হয়। নভেম্বরে পুরস্কৃত হয় ১টি প্রতিষ্ঠান। ডিসেম্বরে পুরস্কৃত হয় ১টি প্রতিষ্ঠান ও ১টি গ্রুপ। জানুয়ারীতে প্ররস্কৃত হয় ২টি প্রতিষ্ঠান, ১টি গ্রুপ এবং ১ জন ব্যক্তি। ফেব্রুয়ারীতে পুরস্কৃত হয় ১টি প্রতিষ্ঠান ও ২টি গ্রুপ। পুরস্কারের এই পার্সন থেকে প্রতিষ্ঠানমূখী যাত্রা যথেষ্টই যৌক্তিক। সেই সাথে গ্রুপমুখী হওয়া প্রমাণ করে সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে গড়ে ওঠা গ্রুপগুলোর (সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, বরিশাল, সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, বরগুনা, সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, টাঙ্গাইল, এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান এবং ম্যাজিস্ট্রেটস অল এয়ারপোর্টস অফ বাংলাদেশ) কার্যকারিতা। ম্যাজিস্ট্রেটস অল এয়ারপোর্টস অফ বাংলাদেশ এর ফেসবুক পেজের লাইক বা সদস্য সংখ্যা এখন ২,৯৮,৪৯২, এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান পেজের লাইক বা সদস্য সংখ্যা ১,১৭,৬৩৯ আর সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম, বরিশাল এর সদস্য সংখ্যা এই মুহূর্তে ৭২০০০+। সরকারি কাজে যখন থেকে ফেসবুক ব্যবহার শুরু হয়, তখন থেকেই এয়ারপোর্ট আর্মড পুলিশ ব্যাটেলিয়ান ও অল ম্যাজিস্ট্রেটস অল এয়ারপোটর্স অব বাংলাদেশ ফেসবুক গ্রুপ সক্রিয়। ফেসবুকের মাধ্যমে নাগরিক সমস্যা সমাধানে এই গ্রুপদুটি অসংখ্য দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছে বলেই আমরা জানি। এই দুই গ্রুপের এডমিনগণ তাঁদের সকল দৃষ্টান্ত ‘পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন বাংলাদেশ’ গ্রুপে শেয়ার করলে আরও অনেকে বিষয়গুলো জানতে পারবেন। মার্চে পুরস্কৃত হন ১জন ব্যক্তি ও ১টি প্রতিষ্ঠান। সব শেষে এপ্রিলে পুরস্কৃত হয় ৪টি প্রতিষ্ঠান।
৮-৫-৫-৩-২-৩-২-১-২-৪-৩-২-৪ পদ্ধতিতে সব মিলিয়ে ১৪ জন ব্যক্তি ২৫টি প্রতিষ্ঠান এবং ৫টি টিম এ্যাওয়ার্ডেড হয়েছেন। ব্যক্তি পর্যায়ে ১৪টি পুরস্কারের মধ্যে একমাত্র মহিলা নাহিদা বারিক, এসি ল্যান্ড, ফতুল্লা, নারায়ণগঞ্জ। এ্যাওয়ার্ডটি আপাততঃ প্রতি মাসে ১জন ব্যক্তি ও ১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা যেতে পারে। আমার আরও মনে হয় মোট ১ বছরের পুরস্কারপ্রাপ্ত ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের প্রোফাইলসহ পোস্টগুলো ছাপার হরফে দুই মলাটের বাঁধাই করা যেতে পারে। আমি এই বইটি সম্পাদনার কাজ করতে রাজী আছি।
ইতোমধ্যে ফেসবুকে socialmediainnovationawardwinners নামে একটি গ্রুপ খোলা হয়েছে। গ্রুপটির লিংক – https://www.facebook.com/groups/socialmediainnovationawardwinners/
বিভাগওয়ারী বিশ্লেষণে ঢাকা ১৫টি, খুলনা ৯টি, বরিশাল ৬টি, রংপুর ৫টি, রাজশাহী ৪টি, ময়মনসিংহ ২টি, চট্টগ্রাম ২টি, এবং সিলেট ১টি পুরস্কার পেয়েছে। জেলা হিসাবে ঢাকা ও কুষ্টিয়া যথাক্রমে সর্বোচ্চ ৯টি ও ৪টি পুরস্কার পেয়েছে। এ পর্যন্ত শুধূ কুষ্টিয়া থেকে ২ জন ও রাজশাহী থেকে ১জন সিটিজেন জার্নালিস্ট এবং বরিশাল, টাঙ্গাইল এবং বরগুনা থেকে ৩টি সিটিজেন জার্নালিস্ট টিম এ্যাওয়ার্ডেড হয়েছেন। জনপ্রশাসনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপজেলা প্রশাসন থেকে শুধু ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল ও টাঙ্গা্ইল জেলার কালিহাতি এখন পর্যন্ত পুরস্কৃত হয়েছে।
সোশাল মিডিয়া ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ড এর বয়স ১ বছর ১ মাস হল। অচিরেই ভাল কিছু একটা হবে আশা করা যায়। যেমন ধরুণ সনদের সফট কপি পেলেও হার্ড কপি এখনও পুরস্কৃতরা পাননি। জমকালো অনুষ্ঠানের দরকার নেই, মোটামুটি কিছু একটা হলেও ভাল হয়।

Categories: পুরস্কার