আজ- শনিবার, ১৮ই নভেম্বর, ২০১৭ ইং, ৪ঠা অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ
Email *

শিরোনাম

  বৃক্ষ রোপণের ৭ তারকা ও ১ শিল্পী       ‘পরিবর্তন চাই’ এর চার বছর       নামে কী বা আসে যায়       লৌহজং ‘সামাজিক আন্দোলন’ – আমার সুখ স্মৃতি       `একাত্তরের জননী’র সন্তানেরা       মনোয়ারাঃ সক্ষম সন্তানদের মরতে বসা মা       নদী-খাল উদ্ধারে সফল, সফলতার পথে এবং সম্ভাব্য অভিযান       মাছের পেটের রড থেকে গরাদঘরে       পাবনায় নৌ-র‌্যালিঃ নদী উদ্ধারে নতুন উদ্ভাবন       বন্যার্তদের জন্য দান নয় ঋণ শোধের আয়োজন       আক্রান্ত সিটিজেন জার্নালিজম       দক্ষিণাঞ্চলে দুই সপ্তাহব্যাপী নিম্নচাপঃ উদ্ভাবন ও সিটিজেন জার্নালিজম বিব্রত       আইনজীবীর হৃৎকম্পে কাঁপছে দেশ       পাবলিক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রতিচ্ছবি       জনশক্তিতে উদ্ভাবন       ফেইসবুক, বাংলাদেশ সরকার এবং রাজার ঘণ্টা       অধ্যক্ষ অনিমেষ ও সোশাল মিডিয়া       জনবান্ধব স্বাস্থ্যসেবায় সোশ্যাল মিডিয়া ও প্রথা ভাঙ্গার গল্প       শিয়ালের কামড় থেকে সোশাল মিডিয়ার কামড়       সোশাল মিডিয়া ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ডের ১ বছর ১ মাস    

WSIS Prizes 2017 এ ভোট দেয়ার ৭ টি দাপ্তরিক নজির

হয়তো অনেকেই WSIS Prizes 2017 এ নিজে ভোট দেবার পাশাপাশি নিজ দপ্তরের ও অধীনস্ত দপ্তরসমূহের কর্মকর্তা, কর্মচারী বা ছাত্র-ছাত্রীদের ভোট দেবার বিষয়ে উদ্বুদ্ধ করেছেন। কিন্তু ‘পাবলিক সার্ভিস ইনোভেশন বাংলাদেশ’ গ্রুপে পোস্ট করেননি বলে আমরা জানতে পারিনি।

এই কাজে প্রথম জানান দিলেন রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ড. অনিমেষ মজুমদার। তিনি শুধু কর্মশালায় নয় ক্লাসেও ছাত্র-ছাত্রীদের এটুআই এর প্রজেক্টগুলোতে ভোট দিতে উৎসাহিত করেন গত ২৫ এপ্রিল।

এরপর ২৬ এপ্রিল দ্বিতীয় নজির স্থাপন করলেন জনাব এম.এ.এন. সিদ্দিক, সচিব, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। নেতৃত্বে এ বিভাগের সকল কর্মকর্তাদের নিয়ে ১০ মিনিট সময় ব্যয় করে  WSIS Prizes 2017  এর জন্য বাংলাদেশ কে ভোট প্রদান করেন। এ বিভাগের অধীন সওজ, বিআরটিসি, বিআরটিএ, ডিটিসিএ এর সকল কর্মকর্তা,কর্মচারী সহ তাঁদের পরিবার,বন্ধু,পরিচিত পরিমন্ডলের সকলকে ৩০ এপ্রিল,২০১৭ এর মধ্যে ভোট প্রদান করে বাংলাদেশকে চতুর্থবারের মতো WSIS এ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির বিরল সন্মান অর্জনে সচিব মহোদয় আন্তরিক আহবান জানান।

২৬ এপ্রিল তৃতীয় নজির গড়লেন গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক মোঃ আব্দুস সামাদ। বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনার মধ্যে দিয়ে জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে WSIS Prizes এ ভোট প্রদান করা হয়।

২৭ এপ্রিল চতুর্থ নজির স্থাপন করেন জনাব খোরশেদ আলম,  যুগ্মনিবন্ধক, বিভাগীয় সমবায় কার্যালয়, ময়মনসিংহ। তিনি বাংলাদেশকে ভোটের মাধ্যমে জিতিয়ে আনতে আগামী ৩০ এপ্রিল ২০১৭ এর আগেই WSIS Prizes 2017 এ অনলাইনে ভোট প্রদানে সকলকে উদ্বুদ্ধ করেন।

পঞ্চম নজির গড়লেন পাবনার  জেলা প্রশাসক রেখা রানী বালো । তাঁর আহবানে ইছামতি নদী উদ্ধার বিষয়ক সভায় উপস্থিত সদস্যবৃন্দ WSIS Award 2017 এ তাৎক্ষণিকভাবে এটুআই এর বিভিন্ন প্রোগ্রামে ভোট প্রদান করেন।

৬ষ্ঠ নজির গড়লেন বিআইএম। ডিজি মোহাম্মাদ আতোয়ার রহমানের নির্দেশে চলমান ট্রেইনিং কোর্সের প্রশিক্ষণার্থীদের হাতে কলমে দেখিয়ে দেয়া হলো ভোট দেয়ার নিয়ম। তাৎক্ষণিকভাবেই অনেক প্রশিক্ষণার্থী ভোট দিলেন।

২৯ এপ্রিল ৭ম নজির তৈরী করলেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. মুর্শিদা ফেরদৌস বিনতে হাবিব ক্লাসের শেষে ১০ মিনিট সময় ব্যয় করে ছাত্র-ছাত্রীদের ভোট দেয়ার নিয়ম শিখিয়ে ও উদ্বুদ্ধ করে।

যারা ভোট দিলেন এবং সমবেতভাবে ভোট দেবার ব্যবস্থা করলেন তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। তবে পিছনে থেকে এর ক্ষেত্র সৃষ্টি করেছেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (মাঠ প্রশাসন) জনাব মো. মাকছুদুর রহমান পাটওয়ারী। তিনি ভোট দেবার ব্যাপারে মাঠে ও মন্ত্রণালয়ে চিঠি দিয়ে অনুরোধ করেছেন। বাংলাদেশ যতো ভোট পাবে এবং যে ক’টি স্বীকৃতিই পাক না কেন – এতে তার অবদান সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

৩০ এপ্রিল রাত ১২টা পর্যন্ত ভোট দেয়া যাবে। আসুন আমরা নিজ নিজ দপ্তরে ১৫ মিনিট সময় ব্যয় করে এমন অগণিত নজির সৃষ্টি করি।

ভোট প্রদানের লিংক
https://www.itu.int/net4/wsis/prizes/2017/

 ভোট প্রদানের বাংলা নির্দেশিকা
http://bangladesh.gov.bd/sites/default/files/files/bangladesh.gov.bd/page/de3763cc_f8ce_4f7c_87f7_b8dcd89a1aa3/How%20to%20Vote%20for%20WSIS%202017_Bangla.pdf

ভোট প্রদানের ইংরেজী নির্দেশিকা
http://bangladesh.gov.bd/sites/default/files/files/bangladesh.gov.bd/page/de3763cc_f8ce_4f7c_87f7_b8dcd89a1aa3/How%20to%20Vote%20for%20WSIS%202017_English.pdf

 ভোট প্রদানের ভিডিও নির্দেশিকা
https://drive.google.com/file/d/0B_GFTrOKx2MeRFFjRFRheXdFYU0/view

১৮টি ক্যাটাগরিতেই ১টি করে ভোট দিন
ভোট দেবার জন্য প্রথমে আপনাকে রেজিষ্ট্রেশন করতে হবে। রেজিষ্ট্রেশনের পর প্রতিটি ক্যাটাগরিতে ১টি প্রজেক্টে ভোট দিতে পারবেন। কাজেই ১, ৩, ৭, ১০ নং ক্যাটাগরিতে নীচের টেবিল থেকে ৪টি প্রজেক্ট আইডিতে ভোট দিন। আর বাকী ১৪টি ক্যাটাগরিতে ইচ্ছেমতো যে কোনো প্রজেক্টে ভোট দিন। ভোট প্রদান প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে আপনাকে ১৮টি ক্যাটাগরিতেই ভোট দিতে হবে। ভোট প্রদানের শেষ তারিখ ৩০ এপ্রিল ২০১৭।

Categories: পুরস্কার