আজ- শনিবার, ৮ই আগস্ট, ২০২০ ইং, ২৪শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ
Email *

শিরোনাম

  Empathy, Patriotism & Commitment Group: একটু বিশ্লেষণ       বৃক্ষ রোপণের ৭ তারকা ও ১ শিল্পী       ‘পরিবর্তন চাই’ এর চার বছর       নামে কী বা আসে যায়       লৌহজং ‘সামাজিক আন্দোলন’ – আমার সুখ স্মৃতি       `একাত্তরের জননী’র সন্তানেরা       মনোয়ারাঃ সক্ষম সন্তানদের মরতে বসা মা       নদী-খাল উদ্ধারে সফল, সফলতার পথে এবং সম্ভাব্য অভিযান       মাছের পেটের রড থেকে গরাদঘরে       পাবনায় নৌ-র‌্যালিঃ নদী উদ্ধারে নতুন উদ্ভাবন       আক্রান্ত সিটিজেন জার্নালিজম       দক্ষিণাঞ্চলে দুই সপ্তাহব্যাপী নিম্নচাপঃ উদ্ভাবন ও সিটিজেন জার্নালিজম বিব্রত       আইনজীবীর হৃৎকম্পে কাঁপছে দেশ       পাবলিক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর প্রতিচ্ছবি       জনশক্তিতে উদ্ভাবন       ফেইসবুক, বাংলাদেশ সরকার এবং রাজার ঘণ্টা       অধ্যক্ষ অনিমেষ ও সোশাল মিডিয়া       জনবান্ধব স্বাস্থ্যসেবায় সোশ্যাল মিডিয়া ও প্রথা ভাঙ্গার গল্প       শিয়ালের কামড় থেকে সোশাল মিডিয়ার কামড়       সোশাল মিডিয়া ইনোভেশন এ্যাওয়ার্ডের ১ বছর ১ মাস    

বন্যা খুঁজে ত্রাণ বিতরণে পরিবর্তনের ছোঁয়া

‘পরিবর্তন চাই’ এর পক্ষ থেকে বন্যার্তদের ত্রাণ বিতরণ করতে গিয়ে রীতিমতো বন্যা খুঁজতে হয়েছে। সংগৃহিত অর্থের পরিমাণ বাড়াতে গিয়ে বন্যার পানি কমিয়ে ফেলেছি। যেখানেই খোঁজ নেই শুনি পানি নেমে গেছে। চারপাশে থিকথিকে কাদা। কাদার্ত মানুষকে ত্রাণ দিয়ে মজা নেই। বৃষ্টির পানি বালতিতে ধরে রেখে বাথরুমে গোসল করে যেমন বৃষ্টিতে গোসলের মজা পাওয়া যায়না অনেকটা সেরকম। আমরা বাথরুমে গোসল করতে রাজী ছিলাম না।

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী থানার, তিলাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কে জিজ্ঞেস করলাম
: কুড়িগ্রামে সবচেয়ে বেশী বন্যা হয়েছে কোথায়?
: ভুরুঙ্গামারীতে
: এই জেলায় বেশী ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা কোনটি?
: তিলাই ইউনিয়ন
কাফিকে বললাম খোঁজ নিয়ে এখুনি জানাও কুড়িগ্রামে কোথায় গেলে বন্যা দেখতে পাবো। বললো নাগেশ্বরী থানার চৌদ্দঘুড়ির অবস্থা অবর্ণনীয়। অবর্ণনীয় জায়গায় ত্রাণ বিতরণ করতে গেলে মানুষ নাকি হামলে পড়ে, হামলাও করে। আমরা চাইছি সহজের মধ্যে সত্যিই প্রয়োজন এমন কিছু মানুষকে সাহায্য করতে। আমাদের নিরাপত্তা যেন বিঘ্নিত না হয় সেটাই টপ প্রায়োরিটি। তাহলে কুড়িগ্রাম সার্কিট হাউস থেকে সকালে রিক্সায় করে গিয়ে ধরলার পাড়ে পাটেশ্বরী এলাকাটাই নাকি ভাল হবে। ভাল মানে কম সময়ে কাজ শেষ করা যাবে, অসহায় মানুষ পাওয়া যাবে, হামলার মুখে পড়তে হবে না এসব। অর্কিড ফোন করে বললেন শুনলাম লালমনিরহাটের ডিমলার অবস্থা আরও খারাপ, আপনি একটু খোঁজ নিন। খোঁজ নিয়ে দেখি মানুষ এখনও সেখানে পানিবন্দী। যেতে সময় বেশী লাগে, যাতায়াত ব্যবস্থাও ভাল না। তাই সেখানে ত্রাণ বিতরণ করা হয় কম। বেশীরভাগ দল আমাদের মতো জেলা শহরের কাছাকাছি ত্রাণ বিতরণ করতে চায়। ততক্ষণে দিদার আর কাজল ভাই কুড়িগ্রামের বাসে উঠে পড়েছেন। তাঁদের ফোন করে রংপুরে মডার্ন মোড়ে নেমে যেতে বললাম। আমিও রাতের মধ্যে রংপুর পৌঁছে গেলাম। পরদিন ভোরে পৌঁছালেন অর্কিড। রংপুর থেকে তূর্য, আজাদ, নূর এবং ওয়াকিল আর রংপুরের বাইরে থেকে আমি, দিদার, কাজল এবং অর্কিড মোট ৮ জন মাইক্রোবাসে চড়ে পৌঁছে গেলাম ঠ্যাংঝাড়া ক্যাম্পে। সেখানে সকাল থেকে নৌকা নিয়ে বসেছিল রফিকুল। সে আমাদের ভারত সিমান্তের কাছে চড় খড়িবাড়ী নিয়ে যাবে যেখানে তিস্তার বাঁধ ভেঙ্গে আকস্মিক বন্যায় প্রায় সর্বস্ব হারিয়েছে হাজার হাজার মানুষ। বাড়িঘর ফেলে তিস্তা ব্যারেজের কাছে মানবেতর জীবন যাপন করছে অনেকে। অনেকে এখনও পানিবন্দী অবস্থাতেই রয়ে গেছে চড়ে। আমাদের সিদ্ধান্ত পানিবন্দী মানুষগুলোকে সাহস ও সহায়তা দেয়া। সিদ্ধান্ত ছিলো ৫০০০ টাকা করে কুড়িটি পরিবারকে সাহায্য করার কিন্তু পরিস্থিতি দেখে প্রথমে ২০০০, মাঝে ১০০০ এবং শেষে ৫০০ টাকা করে দিয়ে আসলাম। পূর্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী প্রতি ক্ষেত্রেই পরিবারের বয়স্ক মহিলা সদস্যার হাতে অর্থ তুলে দেয়া হয়েছে। প্রত্যেকের নাম এবং যোগাযোগের নম্বর নেয়া হয়েছে যেন পরবর্তীতে আবারও তাঁদের সাথে যোগাযোগ করা যায়। নৌকায় বসে বসেই কুড়িটি পরিবারকে সহায়তা দিয়ে আধ ঘন্টার মধ্যে কাজ সেরে ফিরে আসতে পারতাম আমরা। কিন্তু কাজে নেমে পানিতে নেমে, খুঁজে খুঁজে, কোথাও বিরান চরের মধ্যে একটি মহিলাকে দৌড়ে আসতে দেখে, কোথাও ৪০/৫০ জনের দলের মধ্যে থেকে ১০/১২ জন বয়স্ক মহিলাকে আলাদা করে বিশেষ করে দিদার, কাজল, অর্কিড, আজাদ নগদ অর্থ তুলে দিয়েছেন প্রায় সন্ধ্যা অবধি ঘুরে ঘুরে সেটা আমাদের পরিকল্পনায় ছিলো না। পরিকল্পনা ছিলো কম সময়ে সহজে কাজটি শেষ করার। পানিবন্দী মানুষের পাশে গিয়ে পূর্বের সব পরিকল্পনাই ভেসে গেল। মনে হলো ত্রাণ বিতরণে লোক দেখানো কিছু নেই। থাকতে পারে না। চলেন সমালোচনা না করে লোক দেখানো কাজটাই করি। সবাই লোক দেখানো কাজটা করলেই আর দেখানোর লোক থাকবে না।

Categories: কার্যক্রম